কেমন করবে টাইগাররা?

আসন্ন ত্রিদেশীয় সিরিজে ফেভারিটের তকমা নিয়ে খেলতে নামবে স্বাগতিক বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে টাইগারদের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ে। নিজেদের মাঠে বাংলাদেশ কতটা ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে সেটা গত কয়েক বছরে প্রমাণ পেয়েছে ক্রিকেট বিশ্ব। তাছাড়া সমসাময়িক লঙ্কান ও জিম্বাবুয়ে দল শক্তির বিচারে বাংলাদেশের থেকে পিছিয়ে।

আইসিসি র‍্যাঙ্কিংও বাংলাদেশের পক্ষে। র‍্যাঙ্কিংয়ের সাতে থেকে খেলতে নামবে বাংলাদেশ। অন্যদিকে লঙ্কানরা আটে এবং জিম্বাবুয়ে ১০তম স্থানে থেকে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে নামবে। কিন্তু এই ফেভারিটের তকমাটা উল্টো চাপ হয়ে না দাঁড়ায় মাশরাফি বাহিনীর ওপর।

যদিও সিরিজ সামনে রেখে শক্তিশালী দলই গড়েছেন বাংলাদেশ দলের নির্বাচকরা। যোগ্যতার ভিত্তিতে বেশ ভারসাম্যপূর্ণ দল হয়েছে এই সিরিজে। ব্যাটিং ও বোলিং দুই বিভাগেই রয়েছে পরীক্ষিত কিছু মুখ। তামিম মুশফিকদের ধারাবাহিকতা ব্যাটিংয়ে দলের বড় ভরসা। বল হাতে রুবেল মুস্তাফিজদের সঙ্গে আক্রমণে নেতৃত্ব দিবেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

মিরপুরের স্পিনিং উইকেটে সাকিব, নাসির, মিরাজরা প্রতিপক্ষের জন্য দুর্বোধ্য ঘূর্ণি জাল বিছাতে প্রস্তুত। বাংলাদেশের বড় শক্তি হচ্ছে বেশ কয়েক জন অলরাউন্ডার রয়েছেন যারা বলে ব্যাটে সব জায়গায়ই দলের জয়ে অবদান রাখতে পারে। সিনিয়র সাকিব, মাহমুদুল্লাহ, নাসির সঙ্গে রয়েছেন তরুণ অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন, মেহেদি মিরাজ ও আবুল হাসান রাজু। উইকেটের পেছনে থাকবে মুশফিকুর রহিমের বিশ্বস্ত গ্লোভস। আর পুরো আসরে সামনে থেকে দলকে নেতৃত্ব দিবেন বাংলাদেশ ক্যপ্টেন মাশরাফি।

টাইগারদের অবশ্য প্রতিটি ম্যাচেই সতর্ক থাকতে হবে। কেননা টাইগার শিবিরের সাবেক দুই মিত্র হিথ স্ট্রিক ও হাথুরু এখন প্রতিপক্ষের বর্তমান দলের কোচ। নিজেদের হাতে গড়া মাশরাফি-সাকিবদের নিয়ে আঁটসাঁট পরিকল্পনাই করবে এই দুই কোচ। তবে নিজেদের কাজটা সবাই ঠিক ঠাক করতে পারলে এই সিরিজে সফলতার ব্যাপারে আশাবাদী টাইগার ভক্তরা।

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে