ডিএনসিসি উপ-নির্বাচনবিএনপির মনোনয়ন ফরম নিলেন যারা

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদপ্রার্থীদের জন্য মনোনয়ন ফরম দেয়া শুরু করেছে বিএনপি। এরইমধ্যে ধানের শীষ প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে কয়েকজন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

জানা যায়, ডিএনসিসি উপ-নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপির সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাকিল ওয়াহেদ, বিএনপির সাবেক এমপি মেজর (অব.) আক্তারুজ্জামান, ব্যবসায়ী আব্দুল আওয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়াল, বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির বিশেষ সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন এবং ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সভাপতি এম এ কাইয়ুম মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

রবিবার (১৪ জানুয়ারি) নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে তারা মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। মনোনয়ন সংগ্রহের পর মোহাম্মদ শাকিল ওয়াহেদ দুপুরে আগারগাঁও নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে স্থাপিত ঢাকা উত্তর সিটির রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় থেকে মনোনয়ন নেন।

এসময় তিনি বলেন, সকালে প্রথম দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে দলের মনোনয়ন পত্র নিয়েছি। সম্ভবত আমিই প্রথম দলের মনোয়ন নিয়েছি। এরপর এখানে এসেছি। দলের মনোনয়নের বিষয়ে আমি আশাবাদী। তবে দল আমাকে মনোনয়ন না দিলেও দলের মনোনীত প্রার্থির পক্ষে কাজ করবো। এক্ষেত্রে স্বতন্ত্র নির্বাচন করার কোন ইচ্ছে নেই বলেও জানা তিনি।

প্রায়ত মেয়র আনিসুল হক সম্পর্কে তিনি বলেন, বিতর্কিত নির্বাচনের মাধ্যমে তিনি মেয়র হলেও বেশ কিছু বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্তের কারণে তিনি জনগণের সমর্থন ও মনে প্রবেশ করতে পেরেছিলেন। আমি নির্বাচিত হলে তার জনপ্রিয় সব কাজ এগিয়ে নেব। আমি দলের মনোনয়ন পেলে প্রায়ত আনিসুল হকের বাসায় গিয়ে তার পরিবারকে আমাদের সঙ্গে থাকতে অনুরোধ জানাবো। তার অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে সহযোগিতা চাইবো।

মনোনয়ন নেয়ার পর তাবিথ আউয়াল বলেন, আমি আশা করছি গত বারের মতো এবারও দল আমাকে মেয়র পদে মনোনয়ন দেবে। যদি অন্য কাউকেও দেয়া হয় তাহলে আমি তার পক্ষেই কাজ করবো।

আকতারুজ্জামান বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আমাকে অনুমতি দিয়েছেন মনোনয়ন পত্র নেয়ার জন্য। মনোনয়ন না পেলে দল যাকে মনোনয়ন দিবে তার পক্ষে কাজ করার ঘোষণা দেন তিনি।

এদিকে দেশের বাহিরে অবস্থান করার কারণে এম এ কাইয়ুমের পক্ষে মনোনয়ন কেনেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বজলুল বাসিত আঞ্জুম।

বিএনপির এই মনোনয়ন ১০ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সোমবার (১৫ জানুয়ারি) বিকেল ৪টার মধ্যে ২৫ হাজার টাকা জামানতসহ মনোনয়ন জমা দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে ভোট হয়। আওয়ামী লীগের সমর্থনে ওই নির্বাচনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন সদ্য প্রয়াত আনিসুল হক। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতবছরের ৩০ নভেম্বর তার মৃত্যুতে স্থানীয় সরকার বিভাগ ১ ডিসেম্বর থেকে ওই পদটি শূন্য ঘোষণা করে।

এরপর গত ৯ জানুয়ারি ডিএনসিসি’র মেয়র পদে উপ-নির্বাচন, সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর ও ৬টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর এবং ডিএসসিসি’র সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর ও ৬টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

তফসিল অনুযায়ী, এই নির্বাচনে প্রার্থী হতে মনোনয়নপত্র কেনা ও জমা দেওয়া যাবে আগামী ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত। আবেদনকারী প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ২১ ও ২২ জানুয়ারি। তা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৯ জানুয়ারি।

নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী, প্রতীক বরাদ্দের আগে কোনো প্রচার চালানো যায় না। সে অনুযায়ী ৩০ জানুয়ারি থেকে প্রার্থীরা প্রচারণা শুরু করতে পারবেন।বিডি২৪লাইভ

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে