তিস্তার পানি বণ্টনে মমতার ইঙ্গিত লাগবে: সুষমা

বাংলাদেশের সাথে  তিস্তার পানি বণ্টন  পশ্চিমবঙ্গ সরকারের  ইঙ্গিত ছাড়া সম্ভব নয়। ২৮ মে সোমবার এমনটা বললেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ । সুষমা বলেন, বলেন,  তিস্তা চুক্তি শুধু ভারত আর বাংলাদেশ এই দুই সরকারের বিষয় নয়, পশ্চিমবঙ্গও সেখানে খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি পক্ষ। ঠিক সে জন্যই আমরা বারবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে আলোচনার কথা বলছি।
তিনি আরও জানান, ২০১৭ সনে শেখ হাসিনার দিল্লি সফরের সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে বিকল্প প্রস্তাব দিয়েছিলেন সেটাকে কাজে লাগানো যায় কিনা, তা-ই এখন খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ওই প্রস্তাবটা ছিল তিস্তা বাদ দিয়ে উত্তরবঙ্গের আরও দুই-তিনটি নদী (মানসাই, ধরলা, জলঢাকা বা শিলতোর্সা) থেকে একই পরিমাণ পানি বাংলাদেশে পাঠানো।
ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ওই নদীগুলোর পানি  ভাগ হলে তাতে তারা পানিও পাবে, তিস্তাও বাঁচবে। এখন কেন্দ্রীয় সরকারের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও রাজ্য সরকার মিলে সেই প্রস্তাবের ফিজিবিলিটি স্টাডি করছে, যদিও আমরা ওই রিপোর্ট এখনও হাতে পাইনি ।
তিস্তার পানি বণ্টন ইস্যু ছাড়া  রোহিঙ্গা সংকট নিয়েও মিয়ানমারের ভূমিকার সমালোচনা করেন  সুষমা স্বরাজ।
তিনি বলেন, সম্প্রতি  আমি  আং সান সু চির সাতে দেখা করে এসেছি। তার আগে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলীও এখানে ঘুরে গেলেন। তাঁরা দুজনই আমাকে দু’দেশের মধ্যেকার প্রত্যাবাসন চুক্তির বিষয়ে বলেছেন। আমি খুব খুশি যে মিয়ানমার এরইমধ্যে ১ হাজার ২২২ জন লোককে যাচাই-বাছাই করে ফিরিয়ে নিতে রাজি হয়েছে। হয়তো এটা  খুব ছোট পদক্ষেপ হলেও  ফেলনা নয়।
উল্লেখ্য, মিয়ানমারে সেনা অভিযান ও নির্যাতনের মুখে ১২ লাখের বেশি রোহিঙ্গা  বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।-  ইউএনআই
শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে