তীব্র দাবদাহে পুড়ছে রাজধানীসহ সারাদেশ

নিউজ ডেস্কঃতীব্র দাবদাহে পুড়ছে রাজধানীসহ সারাদেশ। জ্যৈষ্ঠের এ গরমে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। মানুষের পাশাপাশি বিভিন্ন পশুপাখিও অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। চিড়িয়াখানাগুলোতে হাঁসফাঁস করছে জীবজন্তুগুলো।

দু-একদিনের মধ্যে বৃষ্টিপাতের কিছুটা সম্ভাবনা থাকলেও এ অস্বস্তিকর গরম থেকে আপাতত মুক্তি পাওয়া যাচ্ছে না। থাকবে আরও কয়েকদিন। এমনটি জানাচ্ছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, দেশের বিভিন্ন জেলাসহ প্রায় সাতটি অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু দাবদাহ বয়ে যাচ্ছে। এ পরিস্থিতি আরও কয়েকদিন থাকতে পারে। তাপমাত্রও বৃদ্ধি পাবে। রাজধানী ঢাকার তাপমাত্রা প্রায় ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছে গেছে। বাতাসে সীসার পরিমাণও বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে আগামী ২৫ মের পর বৃষ্টিপাতের কিছুটা সম্ভাবনা থাকলেও গরম কমার লক্ষণ নেই।

নগরবাসীর অভিযোগ, দিনের গরমের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে লোডশেডিং। ঘণ্টার পর ঘণ্টা অতিবাহিত হলেও বিদ্যুৎ আসছে না। দুঃসহ গরমে মানুষের পাশাপাশি পশুপাখিরও হাঁসফাঁস অবস্থা।

আবহাওয়া অধিদফতরের কর্মকর্তা আবদুর রহমান জানান, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে, যা উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। যে কারণে দেশের সাতটি অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বইছে। এটা আরও বেশ কয়েকদিন অব্যাহত থাকবে। এছাড়া দিন ও রাতের তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকবে। দেশের কোথাও কোথাও অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে।

রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। তবে আগামী পাঁচদিন পর বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিয়ে রেখেছে আবহাওয়া অধিদফতর। তবে গরম থেকে মুক্তি পাওয়া যাচ্ছে না।

ঢাকাসহ দেশের উত্তর ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে তাপপ্রবাহ। তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছুঁই ছুঁই করছে। জ্যৈষ্ঠের এ গরমে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। আবহাওয়া অধিদফতর বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়ে রেখেছে। কিন্তু গরম সহজে কমছে না। বৃষ্টি হলে হয়তো তাপমাত্রা কিছুটা কমে আসবে। কিন্তু বৃষ্টিতে বিরতি পড়লে উষ্ণতার পারদ ঊর্ধ্বমুখী হবে।

আবহাওয়াবিদ আবদুর রহমান আরও জানান, ‘দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু যা বর্ষাকে নিয়ে আসবে, তা এখনও অনেক দূরে বঙ্গোপসাগরেই আটকে আছে। কালবৈশাখীর বৃষ্টিতে গরম থেকে সাময়িক স্বস্তি মিলার সম্ভাবনা থাকলেও তা স্থায়ী হবে না। বাংলাদেশ ও উপকূল সংলগ্ন এলাকায় ঘূর্ণাবর্ত তো দূরের কথা, কোনো নিম্নচাপ অক্ষরেখাও নেই।’

দেশের প্রায় প্রতিটি বিভাগীয় অঞ্চলে বৃষ্টিশূন্য হয়ে পড়েছে। ঢাকা, টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ, সীতাকুন্ড, রাঙ্গামাটি, কুমিল্লা, চাঁদপুর, মাইজদীকোর্ট, ফেনী, হাতিয়া, কক্সবাজার, কুতুবদিয়া, টেকনাফ, রাজশাহী বিভাগের রাজশাহী, ঈশ্বরদী, তাড়াশ, রংপুরের তেতুলিয়া, খুলনার, মংলা, সাতক্ষীরা, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, কুমারখালী এবং বরিশাল বিভাগের বরিশাল, পটুয়াখালী, খেপুপাড়া ও ভোলায় বৃষ্টিাতের পরিমাণ শূন্য। এছাড়া অন্যান্য জেলা ও উপজেলাগুলোর কোথাও কোথাও সামান্য পরিমাণ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হলেও তা অত্যন্ত নগণ্য। যে কারেণ দেশজুড়ে তীব্র দা্বদাহ বিরাজ করছে। এসব এলাকায় আরও কয়েকদিন এটি বলবৎ থাকবে।

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে