ফরিদগঞ্জে শিক্ষক লাঞ্চনায় অভিযুক্তদের বিচারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

ফরিদগঞ্জ অফিস :

শিক্ষক লাঞ্চনায় অভিযুক্তদের বিচার চেয়ে মানববন্ধন করেছে ফরিদগঞ্জ এ আর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা কমপ্লেক্স ফটকে এ মানববন্ধন করে শিক্ষার্থীরা। এতে বিদ্যালয়টির প্রায় ৫ শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহন করে। মানববন্ধনে বক্তৃতাকারী শিক্ষার্থীরা এ সময় বলেন, ‘তদন্ত প্রতিবেদন অনুসারে গত ২৮ ডিসেম্বর রাসেল স্যার কে পরিকল্পিতভাবে বিদ্যালয়ের শত শত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সম্মুখে লাঞ্চিত করা হয়েছে। ৩ দিনের সময় নিয়ে এক সপ্তাহ পর ৪ জানুয়ারী তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। প্রতিবেদন প্রকাশের পর আরো এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়ায় আমরা ক্ষুব্ধ। তদন্ত প্রতিবেদন অনুসারে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনে সংসদ সদস্য, উপজেলা প্রশাসন, জেলা প্রশাসন এবং শিক্ষা ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সুদৃষ্টি কামনা করছি। অন্যথায় আমরা ক্লাস বর্জন সহ অধিকতর কঠোর কর্মসূচী গ্রহনে বাধ্য হবো।’ এ সময় শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শামীম হাসান, মারিয়া আফরিন আনিকা, বাঁধন চন্দ্র শীল, তারেক প্রমুখ।
উল্লেখ্য গত ২৮ ডিসেম্বর ফরিদগঞ্জ এ আর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের খন্ডকালীন শিক্ষক রাসেল হাসান বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর এক ছাত্রী ও তার স্বজনদের হাতে প্রকাশ্যে জুতা পেটার শিকার হন। এর বিপরীতে গঠিত তদন্ত কমিটি এক সপ্তাহ ধরে ব্যাপক সাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিতে রাসেল হাসানকে নির্দোষ বলে ঘোষনা করে এবং কোচিং বাণিজ্যকে কেন্দ্র করে ঘটনাটি পরিকল্পিত ও ষড়যন্ত্রমূলক আখ্যা দেয়। ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত গ্রীণ লিফ কোচিংয়ের দুই মালিক মেহেদি হাসান রাজু এবং ফরহাদ গাজী সহ অভিযুক্ত অপর ৬ জনের বিরুদ্ধে অদ্যাবধি কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে