ফিরবে কি ফিরবে না?

এই আছি এই নেই। ফিরছি , ফিরবো, নতুন ছবিতে চুক্তি। কতশত খবর প্রতিদিন পাওয়া যায়। যাদেরকে ঘিরে এমন খবর, তাঁরা কোথায়?

তাঁরা কিন্তু হারিয়ে যায়নি। ফেসবুক কিংবা বিভিন্ন আড্ডায় তাদের নিত্য দেখা মেলে। এই মিছিলে কে আছে? শাবনুরকে দিয়েই শুরু করা যাক। দীর্ঘ চার বছর অনুপস্থিত ছিলেন বড় পর্দায়। ফিরলেন ‘পাগল মানুষ’ নামে এক সিনেমার মাধ্যমে। এ সিনেমার মাধ্যমে কঠোরভাবে সমলোচিত হতে হয়েছে শাবনূরকে। নতুন কোন ছবির খোঁজ নেই। শাবনূর সিনেমা ছেড়েছে সেই কবে। শুটিং ছাড়লেও রুপালি পর্দা শাবনূরকে ছাড়তে নারাজ। তাকে ঠিকই হাজির হতে হয় সিনেমা সংশ্লিষ্ট প্রগ্রামগুলোতে।

শুধু শাবনুর কেন? রুমানা ও জনা দীর্ঘদিন ধরে স্বামী-সংসারে ব্যস্ত। তারা আছেন সুদূরে। তাই তাদের দেখাও নেই, কথাও নেই। একই কাতারে ফেলা যায় তামান্নাকেও। সুইডেন প্রবাসী এই নায়িকা বাংলাদেশে কখনো ছিলেন না বললেই চলে। সুইডেন-বাংলাদেশ করেই কাটিয়েছেন তার ক্যারিয়ারের কয়েকটা বছর। এখন বাংলাদেশের তল্পিতল্পা গুছিয়ে সেখানেই স্থায়ী। একটা প্রজন্ম তাকে আর চিনবে না। অথচ আহা ‘ভন্ড’। অনেকেই মনে করে আফসোস করে।

পূর্ণিমাও প্রায় চার বছর ধরে নেই বড় পর্দায়। মাঝে মধ্যেই তার ফেরার খবর শোনা যায়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর ফেরা হয় না। স্বামী-সংসার সামলে পূর্ণিমা শোবিজে সময় দেন বটে। তবে সেটা কেবলই টিভি অনুষ্ঠানে। বিজ্ঞাপনে আছেন, আছেন নাটকেও। কেবল নেই সিনেমায়। ভক্তরা আফসোস করে আহা পূর্ণিমা!

সিমলার খবর অনেকেই জানেন না। তার শেষ ছবি পর্দায় এসেছে বছর তিনেক আগে। ‘নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ’ মুক্তির পর আর তাকে হলে ফিরতে দেখা যায়নি। শুটিংয়ে ফিরলেও শিডিউল কেলেঙ্কারি করেই সংবাদ শিরোনামে এসেছেন। হাতে থাকা দুটি ছবি শেষও হচ্ছে না। পুরোপুরি ফাঁকাও হচ্ছেন না ‘ম্যাডাম ফুলি’। মাঝে খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল বিয়ে করছেন সিমলা। তিনি কী ফিরবেন?

বাদ থাকলেন রেসি ও বর্ষা। তিন বছর হয়ে গেল বর্ষা নেই সিনেমাহলে। অনন্ত জলিলের ‘দ্য স্পাই’ আর হচ্ছে না বলা চলে। তবে ফেসবুকে দেখা মেলে তার। নানা অনুষ্ঠানেও তাকে দেখা যায়। ব্র্যান্ডিংয়েও আছেন। আছেন স্বামীসেবায়ও। নেই শুধু বড় পর্দায়। তিনি যে আর ফিরবেন না সে কথাও ঘোষনা দেননি।

পপি নিশ্চয়ই ফিরবে। আটঘাট বেধে এবার নেমেছেন। কিন্তু তার নায়ক কে হবেন? নাচে গানে ভরপুর সিনেমায় অভিনয় করে কী পপি দর্শকের মনোযোগ ধরে রাখতে পারবে? সেখানে অনিশ্চয়তা শতভাগ। পপি হয়তো ফিরবেন কয়েকটা সিনেমা দিয়ে। কিন্তু টিকবেন কতদিন সেটা হলো দেখার বিষয়। তবে তিনি রাজনীতির মাঠে বেশ সচল।

নায়িকা নিপুনও আসা যাওয়ার দোলাচলে। ছোটপর্দায় মাঝেমধ্যে দেখা যায়। বড় পর্দায় নেই বললেই চলে। ফিরলেও টেকার ক্ষমতা কতটা আছে?

সর্বশেষ অপু বিশ্বাসকে এ কাতারে আনতে হয়। শাকিব খানের সঙ্গে বিয়ে ও সন্তানের খবর প্রকাশ হওয়ার পর অপু আছেন খবরের শিরোনামে। কিন্তু তিনি কী আদোই বড় পর্দায় ফিরবেন? দুটি সিনেমায় চুক্তি হয়েছেন শোনা গেলেও তার স্বামী শাকিব খানের নারাজি আছে। সেই নারাজি ডিঙ্গিয়ে ফেরা সম্ভব হবে কিনা বলা মুশকিল!

নায়িকারা যখন হারিয়ে যান, ভক্তদের তখন হৃদয় ভাঙ্গে। ফেরার খবরে পুলকিত হন। এই আসা-যাওয়ার মাঝেই গেল দশকের নায়িকারা নিজেদের অস্তিত্ব জানান দিবেন আর কতকাল?

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে