মুক্তিযোদ্ধার জমি দখলের অভিযোগ মালয়েশিয়ায় প্রবাসী সন্তানের সংবাদ সম্মেলন

ভূমিদস্যুর কবল থেকে জমি রক্ষার দাবিতে মুক্তিযোদ্ধা হাজী আব্দুল আজিজের সন্তান মালয়েশিয়া প্রবাসী  নিরব হোসেন সংবাদ সম্মেলন করেছেন। শুক্রবার বিকেলে কুয়ালালামপুর জালান পাহাং এর একটি হোটেলে এ সংবাদ সম্মেলন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় শ্রমিক লীগ মালয়েশিয়া শাখার সভাপতি মোঃ নাজমুল ইসলাম বাবুল, সহ-সভাপতি মোঃ শাহ আলম হাওলাদার মালয়েশিয়ায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।img_4763

নিরব হোসেন তার  লিখিত বক্তব্যে বলেন, ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানার বাইপাল নতুন পাড়ার বাইপাল মৌজার এস.এ নং-৮৮, ৮৯, আরএস নং-১৪৬, ৪০১ দাগের ২২.৫০ শতাংশ জমি ক্রয় সূত্রে মালিক আমার বাবা হাজী মো: আব্দুল আজিজ। যেখানে শরীফ ভিলা নামক বাড়ি নির্মাণ করে দীর্ঘদিন ভোগ দখলে ছিল। অথচ বাইপাল থানার মৃত লাল মিয়ার ছেলে মো: ওমর আলীগং  অবৈধভাবে জবর দখল করে ভাড়াটিয়াদের ভয়-ভীতি দেখিয়ে অন্যায়ভাবে তাদের কাছ থেকে ভাড়া উত্তোলনসহ ওই জমি নিজেদের বলে দাবি করছে। এক পর্যায়ে আমরা ২৬/০৩/২০১৫ তারিখে আশুলিয়া থানায় জিডি করি। যার জিডি নম্বর-১৮৩০।

জিডি করার পর ভূমিদস্যু ওমর আলী বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা জজ-২ আদালত ঢাকা দেওয়ানী মোকদ্দমা নং-১৫৯/২০১৫ মামলা দায়ের করে। এক পর্যায়ে আদালত সকল তথ্য, কাগজপত্র যাচাই-বাছাইয়ের পর মামলাটি খারিজ করে রায় আমাদের পক্ষে দেন। মামলার রায় আমাদের পক্ষে থাকার পর ওমর আলী গং কিছু দিন নিশ্চুপ থাকলেও আবার তারা অবৈধভাবে জবর দখলের পাঁয়তারা করছে। এমনকি গত ২২/০৮/২০১৭ তারিখ সকাল আনুমানিক ৯ টায় ওমর আলীর ছেলে জনি, একই এলাকার মৃত সমির উদ্দিনের দুই ছেলে জামাল উদ্দিন ও কামাল উদ্দিন আমাদের বাসার ‘শরীফ ভিলা’ নামক নামফলক ভাংচুর করে ত্রাসের সৃষ্টি করে। এ সময় আশুলিয়া থানায় অভিযোগ জানানোর পরও কোন কাজ হয়নি। এমনকি থানা কর্তৃপক্ষ নিশ্চুপ ভূমিকা পালন করেন।

শুধু তাই নয় সওজের জমি অবৈধভাবে দখল করে ওমর আলী গং। সেই জমি উদ্ধার করতে গেলে ওমর আলী গং ধারালো দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিশোটা নিয়ে ২০১৬ সালের ৫ আগস্ট সওজ কর্মকর্তা ও ৪ সাংবাদিকের ওপর হামলায় চালায়। এ সময় তারা গুরত্বর আহতাবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হন। যা দৈনিক সকাল খবরসহ একাধিক পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পরও বহাল তবিয়াতে থাকে তারা।

এদিকে, প্রতিনিয়ত ওমর আলী গং আমার পরিবারের সদস্যদের নানারকম হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে। আমার বৃদ্ধ বাবা-মা এবং পরিবারের সদস্যদের জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে শংকিত।

ভূমিদস্যু ওমর আলীর কবল থেকে জমি উদ্ধারে মালয়েশীয়াস্থ বাংলাদেশ দুতাবাসেও অভিযোগ দায়ের করেছেন নিরব হোসেন।

একজন মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জীবনের নিরাপত্তা ও তার সম্পদের নিরাপত্তাসহ বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী এবং দেশের সর্বোচ্চ মহলের সহযোগিতা কামনা করছেন।

 

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে