রাজনীতি করি জনগণের খেদমত করার জন্য : মীর আব্দুস সবুর আসুদ

জাতীয় পার্টির সুখ-দু:খের সাথী মীর আব্দুস সবুর আসুদ। ঢাকার সন্তান। বাবা ছিলেন সরকারী উর্দ্ধতন কর্মকর্তা। কখনো সরাসরি রাজনীতিতে নাম লেখাবেন এমনটি ভাবেননি। কিন্তু কৈশোর থেকেই মানুষের জন্য কিছু করতে মন চাইতো। ছোটবেলা থেকেই ছিলেন দুরন্ত ডানপীঠে। খেলাধুলার প্রতি ঝোঁক ছিল প্রচন্ড। সে সুবাদে ফুটবল নিয়ে পড়ে থাকতেন মাঠে। স্কুল জীবনেই জড়িয়ে পড়েন ক্রীড়া সংগঠনের সাথে। ভাল ফুটবলার হিসেবেও নাম ছড়িয়ে পড়ে ঢাকার আশপাশ এলাকায়। খেলেছেন প্রথম বিভাগ ফুটবলে। ধানমন্ডি ক্রীড়া চক্র, ব্রার্দাস ইউনিয়ন এবং মুক্তিযোদ্ধা সংসদের জাতীয় দলে খেলেছেন দাপটের সাথে। কিন্তু খেলাধুলায় বেশিদিন মন ডুবিয়ে রাখতে পারেননি। মানুষের জন্য কিছু করার তাগিদেই রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা গ্রহনের পর যে রাজনৈতিক দল গঠন করলেন সরাসরি যুক্ত হলেন সে দলের সাথে। সে থেকে আজ অবধি আছেন এরশাদের সাথে। জাতীয় পার্টির ভাঙ্গাগড়ার খেলায় কখনো আর্দশচ্যুত হননি তিনি। তবে এর স্বীকৃতিও পেয়েছেন তিনি। বর্তমানে মীর আব্দুস সবুর আসুদ জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য। এছাড়া জাতীয় ক্রীড়া সংহতির তিনি সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। একান্ত আলাপচারিতায় মীর আব্দুস সবুর আসুদ খুলে বললেন তার রাজনৈতিক পিপাসার কথা। তিনি জানান, তার প্রথম এবং শেষ ভালবাসা সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচএম এরশাদ। যতদিন বাঁচবেন তিনি জাতীয় পার্টির রাজনীতিই করবেন। রাজনীতিকে তিনি ধর্মীয় গ্রন্থের মত মনে করেন। ধর্ম থেকে যেমন বিচ্যুত হওয়া যায়না ঠিক তেমনি রাজনৈতিক আর্দশ থেকে বিচ্যুত হওয়াটা তার কাছে ঈমানহারা মানুষের মত। মীর আব্দুস সবুর আসুদ মনে করেন, রাজনীতি হচ্ছে জনগণের পাশে থাকা, জনগণের জন্য কিছু করা। রাজনীতির মাধ্যমে বর্তমানে সেটাই তিনি করছেন। রাজনীতিই তার মূল পেশা। পাশাপাশি ঠিকাদারী ব্যবসার সাথে যুক্ত। তবে দিন-রাত এলাকার মানুষের সুখ-দু:খ নিয়েই ভাবেন বেশি। এলাকার সামাজিক কর্মকান্ডের সাথেও ওত:প্রোতভাবে জড়িত। যাত্রাবাড়ি-সায়েদাবাদ-ডেমরার কৃতি সন্তান মীর আব্দুস সবুর আসুদ। যত ভাবনা ঐ এলাকার মানুষদের নিয়ে। বেশির ভাগ সময় কাটান এলাকার মানুষের সাথে। জাতীয় পার্টির শাসনামলে এলাকার অনেক উন্নয়নমূলক কাজ করিয়েছেন। সৎ এবং সজ্জন হিসেবেও এলাকায় বিস্তর সুনাম রয়েছে তার। (যাত্রাবাড়ি-ডেমরা-কদমতলী) এলাকার একাংশ নিয়ে ঢাকা-৫ তাঁর নির্বাচনী এলাকা। এলাকায় জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক অবস্থান মজবুত করেছেন। প্রতিটি ওর্য়াডেই রয়েছে জাতীয় পার্টির কমিটি। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে প্রতিদ্বন্ধিতার প্রস্তুতি নিয়ে মাঠে নেমেছেন অনেক আগ থেকেই। চড়ে বেড়াচ্ছেন এলাকার সর্বত্র। প্রতিদিনই বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগদান করেছেন। নিজ অবস্থান থেকে সব্বোর্চ সহায়তার চেষ্টা করছেন মানুষের জন্য। একান্ত আলাপচারিতায় মীর আব্দুস সবুর আসুদ জানান তার স্বপ্নের কথা। নির্বাচনী এলাকার মানুষকে তিনি মন-প্রাণ দিয়ে ভালবাসেন। তার প্রয়াত বাবার্ পদাংক অনুসরন করেই তিনি মানুষের সেবায় নিজকে নিয়োজিত রাখতে চান। নিজের ইচ্ছা পুরনের অভিলাষ নিয়ে তিনি রাজনীতির মাঠে নামেননি। তার বক্তব্য সোজাসাফটা, যদি মানুষের কল্যানে কিছু করতে পারি সেটাই তার স্বার্থকতা। মানব সেবার ব্রত নিয়েই তিনি এলাকার মানুষের জন্য কিছু করতে চান। জাতীয় পার্টির রাজনীতি প্রসঙ্গে মীর আব্দুস সবুর আসুদ জানান, জাতীয় পার্টি বলতে তিনি পার্টি চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদকেই বুঝেন। মূলত: এরশাদের কারণেই জাতীয় পার্টির রাজনীতির সাথে আজ অবধি যুক্ত রয়েছেন। যতদিন বেঁচে থাকবেন জাতীয় পার্টির রাজনীতিই করবেন। তবে বর্তমান রাজনৈতিক বিভক্তি নিয়ে তার বক্তব্য ভিন্ন। তিনি জানান, স্বার্থ হাসিলের রাজনীতি যারা করেন মূলত: তারাই রাজনীতির বিভক্তি তৈরী করেন। স্বার্থের রাজনীতির প্রতি ঘৃনা প্রকাশ করেন জাতীয় পার্টির তরুন এ প্রেসিডিয়াম সদস্য। আগামী নির্বাচন প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মীর আব্দুস সবুর আসুদ বলেন, সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন হলে সে নির্বাচন বর্হিবিশ্বে আমাদের ভাবমুর্তি বাড়াবে। হানাহানি ও বিবাদের রাজনীতি পরিহার করে সব রাজনৈতিক দলকে জনকল্যানে রাজনীতি করার আহ্বান জানান মীর আব্দুস সবুর আসুদ। (সাক্ষাৎকার নিয়েছেন সংবাদ বিডি ডটকমের প্রধান সম্পাদক ওয়াহিদ মিল্টন

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে