লঙ্কার বিপক্ষে টাইগাদের বড় সংগ্রহ!

দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভার খেলতে নেমে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৯৩ রান করে টিম-টাইগাররা তাই হাথুরুর লঙ্কা জিততে হলে করতে হবে ১৯৪ রান। আর এই রান টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান।

এর আগে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে বিকাল সারে ৪ টায় টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই শুভ সূচনা করে সৌম্য সরকার ও জাকির হাসান। হাথুরুর শীর্ষদের তুলো ধোনা করছে এই দুই জন। এরপর দানুস্কা গুনাথিলাকার বোলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে যায় জাকির আউট হওইয়ার আগে করে ৯ বলে ১০ রান। ওয়ানডে এবং টেস্ট সিরিজ মিস করার পর একাদশে ফিরেছেন ওপেনার সৌম্য সরকার। দলে ফিরেই তিনি করেছেন দুরন্ত সূচনা। আক্রমনাত্মক ব্যটিং করে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম হাফ-সেঞ্চুরি করে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফিরে যায় তিনি। আউট হওয়ার আগে করে ৩২ বলে ৫১ রান। তবে অভিষেকে ব্যাট হাতে দ্যুতি ছড়াতে পারলেন না আফিফ হোসেন। দ্বিতীয় বলে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন শূণ্য রানে। ১১তম ওভারের তৃতীয় বলে আউট হয় আফিফ। তারপরেই বাংলাদেশের হাল ধরে মুশফিকুর রহিম ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।রিয়াদ কে সাথে নিয়ে মুশফিকুরও তুলে নেনে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফ-সেঞ্চুরি। দারুণ ব্যাটিংয়ের পর আউট হয় মাহমুদউল্লা রিয়াদ। ৩১ বলে ৪৩ রানের দারুণ এক ইনিংস উপহার দিলেন তিনি। ২ চার ও ২ ছক্কায় ইনিংসটি সাজান অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। চতুর্থ উইকেটে মুশফিককে নিয়ে ৭৩ রানের জুটি গড়েন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। দ্রুত রান তুলতে গিয়ে ১৯তম ওভারে সাজঘরে ফিরেন তিনি। উদানার বলে স্কুপ খেলতে গিয়ে শর্ট ফাইন লেগে ক্যাচ দেন তিনি। রিয়াদের পরে আউট হয় সাব্বির রহমান তিনি করেন ২ বলে মাত্র ১ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ বাংলাদেশঃ ১৯৩/৩ (২০ ওভার)
ব্যাটিং: আরিফুল হাসান (১*), মুশফিকুর রহিম(৬৬*)
আউট: জাকির হাসান, সৌম্য সরকার, আফিফ হোসেন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান।

বাংলাদেশ দল: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, আফিফ হোসেন, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, আরিফুল হক, জাকির হাসান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন নাজমুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন।

শ্রীলঙ্কা একাদশ: দিনেশ চান্দিমাল (অধিনায়ক), উপুল থারাঙ্গা, নিরোশান ডিকভেলা, দানুস্কা গুনাথিলাকা, কুশল মেন্ডিস, থিসারা পেরেরা, দাসুন শানাকা, আকিলা ধনঞ্জয়া, ইসুরু উদানা, জীবন মেন্ডিস, শেহান মাদুশানাকা।​

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে