শ্রীলঙ্কা সফরের আগেই কোচ চায় বিসিবি

স্পোর্টস ডেস্ক : ত্রিদেশীয় ওয়ানডে টুর্নামেন্ট আর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশের এমন বাজে পারফরম্যান্সের পর চুপ করে বসে থাকতে পারেন না নাজমুল হাসান। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি আজ বৈঠকে বসেছিলেন টিম ম্যানেজমেন্টের বেশ কয়েকজনের সঙ্গে। দুই নির্বাচকসহ বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ, টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ ও টেস্ট অধিনায়ক সাকিব আল হাসান যোগ দিয়েছিলেন বৈঠকে। এ অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়াতে সম্ভব সবকিছু করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের অনেক কথাই বলেছেন বিসিবি সভাপতি। বেশ দুঃখের সঙ্গেই তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের পারফরম্যান্সে মন খারাপ হয়ে গেছে তাঁর। ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার ২২০ রান তাড়া করতে না পারার কষ্টটা তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে তাঁকে। তাঁর অভিমত, গোটা সিরিজেই কৌশল ও পরিকল্পনায় মারাত্মক ঘাটতি ছিল। হাথুরুসিংহের পর একজন ভালো কোচের অভাবটাও তিনি অনুভব করছেন। বিসিবি যে দ্রুতই একজন কোচ নিয়োগ দিতে চাচ্ছে, সেটাও জানিয়েছেন তিনি, ‘আমরা দ্রুতই একজন কোচ নিয়োগ দিতে চাচ্ছি। নিদাহাস ট্রফির আগেই চাচ্ছি। যদি সেটা হয় তাহলে ৭-৮ দিনের মধ্যেই তা করতে হবে। কাজটা সে কারণেই কঠিন। তবে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

সিরিজ শুরু হওয়ার আগে বাংলাদেশের সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গে বসেছিলেন নাজমুল। সাংবাদিকদের মনে করিয়ে দিয়েছেন সে কথাও, ‘আমি সিরিজ শুরুর আগে তিন অধিনায়ক আমার সঙ্গে বসেছিল। তখন ওরা আমাকে বলেছিল এই সিরিজে কোচ ছাড়াই ওরা কাজ চালিয়ে নেবে। নিজেরাই সবকিছুর দেখভাল করতে পারবে। আমি ওদের সময় দিয়েছি। সেই সময়টা শেষ। এখন তো আগের অবস্থায় ফিরতে হবে।’

শ্রীলঙ্কার নিদাহাস ট্রফি নিয়ে চিন্তিত বিসিবি সভাপতি, ‘আমাদের হাতে সময় নেই। শ্রীলঙ্কার মাটিতে ওদের বিপক্ষে খেলা তত্ত্বগতভাবেই কঠিন হওয়ার কথা। ওখানে ভারত আছে। দুর্দান্ত ফর্মে তারা। সুতরাং ওই টুর্নামেন্টে এমন গা ছাড়াভাবে খেলতে যাওয়ার কোনো মানে হয় না। আজ কোর্টনি ওয়ালশের সঙ্গে কথা বলেছি। ১৪ জন পেসারকে নিয়ে তিনি বৃহস্পতিবার থেকেই ক্যাম্প শুরু করবেন। টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে ২২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ক্যাম্প শুরু করা যায় কি না, সেটা দেখছি।’

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে