বান্দরবানে পর্যটকদের উপচে পড়া ভীড়

কামরান ফারুক বান্দরবান থেকে

প্রকৃতির সুন্দর লীলা ভুমি বান্দরবান পার্বত্য জেলা। প্রকৃতির এই সুন্দয্য দেখতে ঈদুল আযহার ছূটিতে বান্দরবানের পর্যটন স্পট গুলোতে ভিড় জমায় হাজার হাজার দেশী-বিদেশী পর্যটক। পর্যটন স্পট গুলোতে পর্যটকের চাপ সামলাতে হিমসীম খাচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন।পর্যটন মাতা হিসাবে খ্যাত বান্দরবানে রয়েছে দেশের সবোচ্চ পর্বত শৃংঘ তাজিংডং বিজয়, কেওকারাডং, রহস্যময় বগালেক, নীল গিরি,রিজুক ঝর্না, চিম্বুক, নীলাচল,মেঘলা,স্বর্ন জাদি মন্দির,ন্যাচারাল র্পাক, ও শৈল প্রপ্রাতসহ প্রায় শতাধকি পর্যটন স্পট। জেলার অন্যতম পর্যটন স্পট নীলগিরি ও নীলাচলে দাঁড়ালে উড়ন্ত মেঘ জড়িয়ে ধরে আপনাকে আপন করে নেবে এবং ভিজিয়ে দেবে শরীর। রহস্যময় বগালেকের পাড়ে রাত যাপন করে জীবনের স্মরনীয় ঘটনা হিসাবে লিখতে ব্যস্থ অনেকে। অনেক ইয়াং নারী পুরুষ পায়ে হেটে দেশের সর্বোচ্চ পর্বত শৃংঘ তাজিংডং এর উপর আরোহন করে সর্বোচ্চ চুঁড়ায় পদ চিহ্ন এঁকে দিতে ব্যস্থ রয়েছে। রিঝুক ঝর্না ও শৈলপ্রপাতের শীতল পানিতে গা ভাসাতে মেতেছে অসংখ্য পর্যটক। এছাড়াও মঘেলার ঝুলন্ত সতেু আর ক্যাবলকারে চড়ে এবং প্রাকৃতকি অপরুপ দৃশ্য দেেখ মুগ্ধ হচ্ছে হাজার হাজার দেশী-বিদেশী পর্যটক ।

ঈদের আগে হোটলে,মোটলে ও কটজে বুকিং হয়ে যাওয়ার কথা থাকলেও বৈরী আবহওয়ার কারনে এবছর তা অনিশ্চিত ছিল। কিন্তু ঈদের দিন থেকে সুস্থ্য ও সুন্দর আবহওয়া বিরাজ করার কারনে অল্প সময়ের মধ্যে বুকিং হয়ে গেছে প্রায় সকল হোটেল,মোটেল ও কটেজের রুম।
তাছাড়াও পর্যটক বেড়ে যাওয়ার কারনে পর্যটকবাহী গাড়ী চালকরা পর্যটক নিয়ে এই স্পট থেকে অন্য স্পটে ঘুরে ব্যস্থ সময় কাটাচ্ছে।

বান্দরবান জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুল হক চৌধুরী জানান, ঈদের কয়েক দিন আগে থেকে বৈরী আবহওয়া বিরাজ করার কারনে বান্দরবানে পর্যটক সমাগম নিয়ে হতাশ ছিলাম। কিন্তু ঈদের দিন থেকে সুস্ক আবহওয়া বিরাজ করার কারনে সেই দূচিন্তা কেটে গেছে। ঈদের দিন থেকে অন্যান্য বারের মত হাজার হাজার পর্যটক আসতে শুরু করেছে। তবে পর্যটকদের নিরাপত্তাসহ সকল ধরনের সুযোগ সুবিধা ও সেবা দিতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

বান্দরবান হোটেল মোটেল মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ সিরাজুল ইসলাম জানান,অন্যান্য বছর ঈদের এক মাস আগে হোটেল,মোটেল ও কর্টেজের সকল রুম বুকিং হয়ে যায়। কিন্তু এবছর বৃষ্টি বাদলের কারনে পর্যটকদের কোন সাড়া না পেয়ে আমরা প্রথমে হতাশ ছিলাম। কিন্তু ঈদের দিন থেকে অনুকুল পরিবেশের কারনে অগের মত পর্যটক আসতে শুরু করেছে। তবে আবহওয়া যদি ঠিক থাকে তাহলে ভাল ব্যবসা হবে বলে তিনি জানান।

 

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে