ব্রেকআপ হোক সম্মানের সাথে!

নিউজ ডেস্ক :সম্পর্ক এমন এক জিনিস যা শেষ হয়েও যেন হয় না। বোঝাপড়া, ভালবাসা তলানিতে এসে ঠেকলেও মানুষ আঁকড়ে ধরতে যায় ক্ষয়ে যাওয়া সম্পর্কের খড়কুটো। তাই বিচ্ছেদ বেশির ভাগ সময়ই হয় যন্ত্রণাদায়ক। অনকে ক্ষেত্রে অপ্রীতিকরও। যদি আপনি ব্রেক আপের সিদ্ধান্ত নেন তাহলে চেষ্টা করুন যতটা সম্ভব সম্মানজনক ভাবে সম্পর্কে শেষ করতে।

মাথায় রাখুন এগুলোঃ

– সঙ্গীকে আগে থেকে তৈরি রাখুন- হঠাৎ ব্রেক আপ করলে অনেকেই সেই আঘাত সহ্য করতে পারেন না। তাই আস্তে আস্তে ব্রেক আপের পটভূমি তৈরি করুন। সম্পর্কের সমস্যা নিয়ে কথা বলুন, প্রশ্ন তুলুন। এক সঙ্গে সময় কাটানো ধীরে ধীরে কমিয়ে দিন।

– সম্মানজনক ভাবে ব্রেকআপ করুন- টেক্সট মেসেজ, ইমেল বা সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্যে নয়। যাঁর সঙ্গে অনেকটা সময় কাটিয়েছেন তাঁকে সামনা সামনি বলার দায়িত্ব আপনার রয়েছে। তাই মুখোমুখি কথা বলে সম্পর্কে ইতি টানুন।

– জটিলতা বাড়াবেন না- ইনিয়ে বিনিয়ে নয়। সঙ্গীকে কথাটা সোজাসুজি বলুন। কেন আপনি ব্রেক আপ চাইছেন সেই কারণও প্রস্তুত রাখুন। সঙ্গী জানতে চাইবেনই। তবে কখনই অযথা দোষারোপ করে পরিস্থিতি জটিল করবেন না।

– সিদ্ধান্তে অটুট থাকুন- যদি মন থেকে ঠিক করে নেন সম্পর্ক শেষ করবেন তবে সেই সিদ্ধান্তে অটুট থাকুন। আপনার সঙ্গী হয়তো আরও এক বার ভেবে দেখতে বলবেন। যদি দ্বিতীয় বার ভাবায় মন সায় না দেয় তবে নিজের সিদ্ধান্তেই অটুট থাকুন। ব্রেক আপের পর কথা বললে, টেক্সট করলে বা দেখা করলে কিন্তু পরিস্থিতি বদলাবে না।

– শুধু নিজের কথা ভাববেন না- সঙ্গীর দিকটা বোঝার চেষ্টা করুন। উনিও যাতে আপনার দিকটা বুঝতে পারেন সেই ব্যাপারে সাহায্য করুন। আপনি যদি ওনার কথাও শোনেন, বোঝার চেষ্টা করেন, তাহলে ওনার দিক থেকেও ব্যাপারটা সম্মানজনক হবে। সূত্রঃ উইকিহাউ।

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে