মাশরাফির অবসরে কাঁদছে ফেসবুক

স্পোর্টস ডেস্ক: খবরটি প্রচার হয়েছে চব্বিশ ঘণ্টার বেশি হলো। হঠাৎ কোনো আঘাতে মানুষ যেমন শোকে বিমূঢ় হয়, খবর নামক ওই দুঃসংবাদে তেমনি অবস্থা বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনে। মঙ্গলবার ম্যাচ শেষ হওয়ার পরই মাশরাফি বিন মুর্তজার সতীর্থরা সোশ্যাল সাইটে নিজেদের কষ্টের কথা লিখেছেন। আজকের সংবাদ সম্মেলনেও উঠে এল ম্যাশের কথাই।

প্রিয় অধিনায়কের জন্য দেশের ক্রিকেটাঙ্গনের সবচেয়ে বড় অংশ সমর্থকদের বিহ্বলতা এখনও কাটছে না। সোশ্যাল সাইটগুলো এখনও ভরে উঠছে ম্যাশের প্রতি ভালোবাসায়। কেউ হতাশ, কেউ ক্ষুব্ধ আবার কেউ রীতিমতো রাস্তায় নামার জন্য রেডি!

এসব হয়তো আর দু-একদিনের মধ্যেই কেটে যাবে। কিন্তু ম্যাশের প্রতি কোটি কোটি মানুষের এই ভালোবাসা থেকে যাবে বহুযুগ। বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম যেমন তার ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, “সব অসাধারণ জিনিসের সমাপ্তি আছে। এটি হয়তো তারই একটি। আপনি সত্যিকারের চ্যাম্পিয়ন। আপনার মতো নেতার
অধীনে খেলতে পেরে নিশ্চিত আমার মতো সবাই গর্বিত। একইসঙ্গে আমরা সবাই খুব হতাশ। কারণ ম্যাশকে ছাড়া বাংলাদেশ দল, এটা আমাদের জন্য ভাবা কঠিন। ”

মাশরাফির আদরের ‘হিরো’ তাসকিন আহমেদ লিখেছেন, জানি না আর কতদিন এই হাতটা খেলার মাঠে আমার কাঁধে পাব…জাতীয় দলের অভিষেক হওয়ার আগে থেকেই আপনি আমার আইডল.. আর গত তিন বছর ধরে একজন অভিভাবকের থেকেও অনেক বেশি কিছু .. সব সমস্যার সমাধক হিসেবেও বার বার আপনাকেই জ্বালাবো ১০০% সিওর ..।

তেমনি ম্যাশের কোনো এক পাগল ভক্ত ফেসবুকে লিখেছেন, “মাশরাফি ভাইয়ের সকল সমর্থকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, আমরাতো মাশরাফি ভাইকে কিছুই দিতে পারিনি চলুননা আজ অন্তরের অন্তস্থল থেকে তাকে একটু ভালোবাসা জানাই। ”

কেউ হয়তো আবার ভীষণ ক্ষেপে গিয়ে লিখেছে, টি-২০ থেকে আমি বস মাশরাফির অবসর চাই না। মানি না মানবো না, বস থাকবে না, এটা হতে পারে না। এটা বসের নিজের সিদ্ধান্ত নয়, বসের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বলে মনে করছি। সর্বস্তরে এর প্রতিবাদ হওয়া জরুরী। ”

সত্যিকারের এক শার্দুল  যেন কোটি বাঙালির প্রিয় ক্যাপ্টেন মাশরাফি। ম্যাশের এই অবসরের সিদ্ধান্ত পাল্টানোর আবেদন করছে ভক্তরা। খোলা হয়েছে ইভেন্ট, পেইজ। যে মানুষটি শ্রীলঙ্কা যাওয়ার আগে বলে গিয়েছিলেন টি-টোয়েন্টি নিয়ে তার স্বপ্নের কথা, সেই মানুষটি ম্যাচের আগের সারা রাত জেগে অবসরের সিদ্ধান্ত নিলেন। তেমন কেউ জানলেন না। সতীর্থরা জানলেন মাঠে গিয়ে!

সেই সঙ্গে কোচের ‘সিনিয়র ছাঁটাই অভিযান’ এর কথা সবাই জানে। সব মিলিয়ে প্রিয় অধিনায়কের এমন আকস্মিক বিদায় মেনে নিতে পারছে না কেউ। যে মানুষটি পায়ে সাতবার অপারেশনের পরও ২২ গজে বাঘের মতো গর্জে ওঠে; হিমালয়ের মতো মানসিক জোর যার; কোন অভিশপ্ত চাপ এসে ভেঙে দিল সেই মানুষটির মন? অনেক কিছুই প্রকাশ হয়েছে গত ২৪ ঘণ্টায়। হয়তো আরও প্রকাশিত হবে; কিংবা হবে না। তাতে কি ম্যাশের প্রতি ভক্তদের ভালোবাসা কমে যাবে?

 

শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিতে